সিলেট

সিলেট নগরীতে হঠাৎ করে চোর আতংক,

 

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেটে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হঠাৎ করে বেড়েছে চোরের উৎপাত। রাতের আঁধারে বিভিন্ন উপায়ে দোকানে ঢুকে নগদ টাকা, মালামাল ও জরুরি কাগজপত্র নিয়ে যাচ্ছে সংঘবদ্ধ চোরচক্র। সর্বশেষ শুক্রবার দিবাগত রাতে নগরী ও শহরতলির ৪টি দোকানে ঘটেছে পৃথক চুরির ঘটনা। এতে সিলেট নগরী ও শহরতলির ব্যবসায়ীরা আছেন চরম আতঙ্কে।

গত কয়েক দিন থেকে সিলেট নগরী ও শহরতলির বিভিন্ন দোকান-ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চুরি সংঘটিত হচ্ছে। কোনো রাতে একাধিক দোকানে হচ্ছে চুরি। এসব ঘটনায় কেউ কেউ থানাপুলিশের দ্বারস্থ হলেও মিলছে না সুরাহা। সর্বশেষ শনিবার রাতে সিলেট নগরীর সোবহানীঘাটে ৩টি দোকানে এবং শহরতলির একটি দোকানে চুরি সংঘটিত হয়েছে।

জানা গেছে, শুক্রবার রাতের কোনো এক সময় নগরীর সোবহানীঘাটস্থ ২টি দোকানের পেছন দিকে দেয়াল ও একটি দোকানের দরজা ভেঙে চুরি সংঘটিত হয়েছে। এই তিন দোকানের নগদ টাকাসহ প্রায় ৩ লক্ষ টাকার মালামাল চুরি হয়েছে বলে দোকানগুলো স্বত্বাধিকারীরা জানিয়েছেন।

রোববার (২৩ মে) সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, শুক্রবার দিবাগত রাতের কোনো এক সময় সোবহানীঘাটস্থ বিল্লাল আইপিএস (ব্যাটারির দোকান) ও মা টায়ার (টায়ারের দোকান)- এই দুই দোকানের পেছনের দেয়াল ভেঙে এবং পাশের মার্কেটের ওয়ালপেপার নামক দোকানের পেছনের স্টিলের দরজা ভেঙে চোরের নগদ টাকাসহ প্রায় ৩ লক্ষ টাকার মালামাল নিয়ে যায়।

এর মধ্যে বিল্লাল আইপিএস থেকে ৩০-৩৫ হাজার টাকার মালামাল ও কিছু টাকা, মা টায়ার থেকে নগদ অর্থসহ ১৫-২০ হাজার টাকার মালামাল এবং ওয়ালপেপার নামক দোকান থেকে নগদ ১ লক্ষ ৩৫ হাজার টাকা, একটি ল্যাপটপ ও দেওয়ালে ওয়ালপেপার স্থাপনের কাজে ব্যবহৃত ২৫ হাজার টাকার পারফিউম চুরি হয়েছে।

এব্যাপারে জানিয়েছেন বিল্লাল আইপিএস-এর মালিক বিল্লাহ আহমদ, মা টায়ারের মালিক আনোয়ার হোসেন এবং ওয়ালপেপার-এর পরিচালক এনাম আহমদ। চুরির বিষয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের (এসএমপি) শাহপরাণ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানান তারা।

অপরদিকে, শুক্রবার দিবাগত রাতের কোনো এক সময় সিলেট শহরতলির কুমারগাঁওয়ের ‘ন্যাশনাল ডিমের আড়ৎ’ নামক দোকানে চোর ঢুকে দোকান থেকে নগদ ২ লাখ ৬৯ সত্তর টাকা ও ১ লক্ষ টাকার ডিম নিয়ে যায়।

জানা গেছে, ‘ন্যাশনাল ডিমের আড়ৎ’র স্বত্ত্বাধিকারী মো. আমিনুর রহমান আমিন প্রতিদিনের মতো শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তার দোকান তালাবদ্ধ করে বাসায় চলে যান। পরদিন সকাল ৭টার দিকে দোকানে এসে দেখেন দোকানের শাটার খোলা এবং তালা ভাঙা। এসময় তিনি দোকানের ভেতরে ঢুকে দেখতে পান, ক্যাশ ড্রয়ার ভাঙা এবং ড্রয়ারে থাকা নগদ ২ লক্ষ ৬৯ হাজার ৩ শ টাকা উধাও। এছাড়াও দোকানে থাকা প্রায় ১ লক্ষ টাকা বিভিন্ন জাতের ডিম এবং জরুরি কাগজ-পত্র নিয়ে গেছে চোর।

এদিকে, চুরি করার আগে চোর দোকানের সিসিটিভি ক্যামেরা ঘুরিয়ে অন্যদিকে দেয়। এছাড়াও সিসিটিভির মনিটর ভাঙচুর করে চোর।
এছাড়াও সিলেট নগরীর বাগবাড়ী নরশিংটিলা এলাকায় গত ১৬ থেকে ১৯ মে পর্যন্ত ১টি বাসা, ১টি মুদি দোকান ও ১টি লেডিস শপে চুরি সংঘতি হয়। দুটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় ২ লক্ষ টাকার মালামাল চুরি হয়েছে বলে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানান, গত ১৬ মে নরশিংটিলার বাসিন্দা টগর দত্তের বাসায় রাত আড়াইটার দিকে ঢুকে কয়েকটি মোবাইল ফোন নিয়ে যায় এক বা একাধিক চোর। পরে ১৮ মে হাজি গিয়াস স্টোর নামক মুদি দোকান থেকে দেড় লক্ষ টাকার মালামাল চুরির ঘটনা ঘটে। একই দিন রাতে ওই এলাকার আর এম লেডিস শপ নামক দোকানের শাটারের তালা ভেঙে ৩০ হাজার টাকার শাড়িকাপড় ও কসমেটিক্স মাল নিয়ে যায় চোরেরা। এর পরদিন (১৯ মে) রাত ৩টার দিকে স্থানীয় নোমান আহমদের বাসায় ঢুকে চুরি করতে ব্যর্থ হয়ে এলাকার পারভেজ আহমদের বাসা ও এক আইনজীবির বাসায় ঢুকে মূল্যবান মালামাল নিয়ে চোর।
সিলেটে একের পর এক দোকান-ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে চুরির ঘটনায় চরম আতঙ্কে আছেন ব্যবসায়ীরা। এ বিষয়ে ব্যবসায়ীরা প্রশাসনের জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণের জোর দাবি জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে এসএমপি’র অতিরিক্ত উপ-কমিশনার আশরাফ উল্যাহ তাহের বলেন, সিলেটে চুরি-ডাকাতি-ছিনতাইসহ সকল অপরাধ দমনে সেজন্য পুলিশ তৎপর রয়েছে। সম্প্রতি নগরীর বিভিন্ন দোকানে যে দোকানে চুরি সংঘটিত হচ্ছে- এ বিষয়ে অবগত নই। তবু খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ জাতীয় আরও সংবাদ

সিলেটে কেনো লকডাউন চাই

todaysylhet24

জাফলং বাজারে জামাই সুমন ও আতাই মেম্বারের নেতৃত্বে সন্ত্রাসী হামলা; আহত ৫

todaysylhet24

নগরীতে ৩ চোর গ্রেফতার

todaysylhet24

Leave a Comment